Logo
নোটিশ :

আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বগতম>>তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে  সাথে থাকুন  ধন্যবাদ।

বেপরোয়া বালুদস্যু নাছির: হুমকির মুখে ফসলি জমিসহ দুটি গ্রাম

রিপোর্টার : / ৯৫ বার
আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৩১ আগস্ট, ২০২১

বিশেষ প্রতিবেদক::

ইয়াবা কারবারে জড়িতের জনশ্রুতি থাকা কক্সবাজার সদরের ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদের ৬নং ওয়ার্ডের মেম্বার নাছির উদ্দিনের বিরুদ্ধে এবার ক্ষমতার প্রভাবকাটিয়ে বাঁকখালী নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলণের অভিযোগ উঠেছে। দীর্ঘদিন ধরে বাংলাবাজারের দরগা পূর্ব মুক্তারকুলস্থ বাঁকখালী নদীতে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে নাছির মেম্বার।

ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি নিচু জমিও ভরাট কাজ শেষ করেছে মেম্বার নাছির। নিজের ডাম্পারের (মিনি ট্রাক) মাধ্যমে বালু গুলো বিক্রি করে যাচ্ছে বিভিন্ন এলাকায়। প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে প্রকাশ্যে বালু উত্তোলনে সরকার হারাচ্ছে বিপুল পরিমাণ রাজস্বও।

সোমবার (৩০ আগস্ট) সকালে সরেজমিনে গেলে নাছির মেম্বার নিজস্ব ডাম্পারের মাধ্যমে বালু পাচারের সত্যতা দেখা যায়।

সরেজমিনে দেখা যায়, পূর্ব মুক্তারকুলস্থ বাঁকখালী নদীতে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে বালু উত্তোলন করছে অনেক শ্রমিক। পাইপের মাধ্যমে নদী থেকে বালু তোলে ভরাট করা হচ্ছে নাছির মেম্বারের বাড়ির সামনের জলাশয়। বিশাল জলাশয় ইতিমধ্যে ভরাট কাজও শেষের দিকে। অন্যদিকে নদীর পাশে স্তুুপ করে রাখা হয়েছে বিশাল বালুর পাহাড়ও। ওই বালুর পাহাড় থেকে ডাম্পারের মাধ্যমে বালু গুলো সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন জায়গায়। প্রায় তিনটি ডাম্পারের মাধ্যমে নদী থেকে তোলা বালু গুলো অন্য জায়গায় পাচার করা হচ্ছে।

স্থানীয় এক ব্যক্তি বলেন, বাঁকখালী নদী থেকে অনেকেই ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করছে। নাছির মেম্বারেরও একটি ড্রেজার মেশিন রয়েছে। ওই ড্রেজার দিয়ে প্রতিদিন বালু তোলা হচ্ছে। মেম্বারের বাড়ির সামনেও বিশাল একটি নিচু জলাশয় শ্রেণি জমিও ভরাট করা হয়েছে। বর্তমানেও ভরাটের কাজ চলছে। তবে বেশির ভাগ বালু অন্য জায়গায় ডাম্পারের মাধ্যমে বিক্রি করে দিচ্ছে। প্রতিদিন তিনটি ডাম্পারের মাধ্যমে বালু গুলো সরিয়ে নিচ্ছে। তিনটি ডাম্পারের মধ্যে একটি নাছির মেম্বারের নিজস্ব অন্য দুটি ভাড়া করে আনা হয়। এভাবে প্রতিদিন বালু তোলে বিক্রি করে দিচ্ছে মেম্বার নাছির।

একটি সূত্রে জানা গেছে, অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের কারণে প্রতিনিয়ত ডাম্পারের যাতায়ত রয়েছে পূর্ব মুক্তারকুলে সড়কে। যার কারণে এলাকার সড়কটি ভেঙে যায়। সড়কের ভাঙা রোধ করতে গত বছর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান টিপু সোলতান ওই সড়কে ডাম্পার চলাচল বন্ধ করে দেয়। ওই সময় কিছু দিন ডাম্পার চলাচল বন্ধ ছিল। কিন্তু কয়েক দিন যেতে না যেতেই ফের শুরু হয় বালু ভর্তি ডাম্পার যাতায়তের। বর্তমানে এলাকার সড়কটি হুমকির মুখে পড়েছে। এলাকবাসীরাও চাই বালু ভর্তি ডাম্পার চলাচল বন্ধ করতে । কিন্তু স্থানীয় নাছির মেম্বারের কাছে সবাই অসহায়। নিজের ক্ষমতার দাপটে প্রতিদিন ডাম্পারের মাধ্যমে বালু পাচার করে যাচ্ছে।

তবে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের বিষয়টি অস্বীকার করলেও নিজের বাড়ির সামনে ভরাটের বিষয়টি স্বীকার করেন ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদের ৬নং ওয়ার্ডের মেম্বার নাছির উদ্দিন।

কক্সবাজার সদর উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভূমি) নু- এমং মারমা মং বলেন, বাংলাবাজার বাঁকখালী নদী থেকে বালু উত্তোলনের বিষয়ে বেশ কয়েকবার অভিযান চালিয়ে মেশিন জব্দ করা হয়েছিল। আবারও সেখানে অভিযান চালানো হবে।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আমিন আল পারভেজ বলেন, বাংলাবাজার বা মুক্তারকুল বাঁকখালী নদী থেকে বালু উত্তোলনের জন্য কাউকে অনুমতি দেওয়া হয়নি। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

উখিয়া কন্ঠ /শ/ই


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর