Logo
শিরোনাম :
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে স্কাসের কার্যক্রম পরিদর্শন করলেন উপআনুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো ডিজি ডাকাতির প্রস্তুতিকালে দেশীয় অস্ত্রসহ ১৪ রোহিঙ্গা গ্রেপ্তার উখিয়ায় সন্ত্রাসী হামলায় গ্রাম্য চিকিৎসক আহত নেতাকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত এম এ মন্জুর ভালোবাসায় সিক্ত হন অধ্যক্ষ মো. শাহ আলম নৌকার মনোনয়ন নিয়ে এসে ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত চেয়ারম্যান টিপু সুলতান রাজাপালংয়ে নৌকার প্রার্থী জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীর সমর্থনে শোকরানা ও পথ সভা অনুষ্ঠিত খরুলিয়ার গণি বৈরাগী সোয়া ৯ হাজার ইয়াবাসহ গ্রেফতার উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে আবারো প্রার্থী হয়েছি : ইঞ্জিনিয়ার হেলাল উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ
নোটিশ :

আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বগতম>>তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে  সাথে থাকুন  ধন্যবাদ।

টেকনাফে বড়শিতে ধরা পড়লো ২৮ কেজি ওজনের কালো পোয়া

কক্সবাজার প্রতিনিধি / ১৮৫ বার
আপডেট সময় : রবিবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২০

 

টেকনাফে বড়শিতে ধরা পড়লো ২৮ কেজি ওজনের একটি কালো পোয়া। মাছটি বিক্রি হয়েছে ১ লাখ ৯১ হাজার টাকায়।

রোববার বেলা ১১টার দিকে শাহপরীরদ্বীপ পশ্চিমপাড়া সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে মজিদ আহমেদ নামে এক জেলের বড়শিতে মাছটি ধরা পড়ে। মাছটি লম্বা প্রায় সাড়ে তিন ফুট।

জেলে মুজিব মজিদ আহমদ জানান, রোববার সকালে নৌকা নিয়ে তিনিসহ তিনজন শাহপরীর দ্বীপ পশ্চিমপাড়া সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরের মাছ শিকারে যান। ওই সময় তারা একসঙ্গে ১০টি বড়শি সাগরের নিক্ষেপ করেন। এসময় বড়শিতে ৭ কেজি ওজনের একটি পোয়া মাছ ধরা পড়ে। এর কিছুক্ষণ পর বড় পোয়া মাছটি ধরা পড়ে।

তিনি আরও বলেন, মাছটি নিয়ে তীরে আসার সাথে সাথে বড়শিতে বড় মাছ ধরা পড়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে পশ্চিমপাড়া মৎস্য ঘাটে উৎসুক জনতা মাছটি দেখতে ভিড় জমান। পরে ইসমাইল নামে একজন মৎস্য ব্যবসায়ী মাছটি কিনে নেন।

মজিদ জানান, তার বড়শিতে প্রায় বড় পোয়া ধরা পড়ে। গতবছর প্রায় বিশ কেজি ওজনের একটি পোয়া মাছে ৮০ হাজার টাকা পেয়েছিলেন। এছাড়া এইবছর বড় আকারের আরও বেশ কিছু সামুদ্রিক মাছ ধরেছেন যা বিক্রি করে ৪-৫ লাখ টাকা আয় হয়েছে।

মাছ ক্রেতা ব্যবসায়ী মোহাম্মদ ইসমাইল বলেন, মাছটি কক্সবাজার ফিশারি ঘাটে পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে চট্টগ্রাম ফিশারি ঘাটে পাঠানো হবে। ফিশারি ঘাটে বিদেশে পোয়া মাছ রফতানি করে এমন কয়েকজন বড় ব্যবসায়ী আছেন। মূলত তারা এ ধরনের মাছ কিনে হংকং, সিংগাপুরসহ বিভিন্ন জায়গায় রফতানি করে থাকেন।

তিনি জানান, ঝুঁকি নিয়ে মাছটি কিনেছেন। কারণ (ফুসফুসের) ওজন অনুযায়ী এই মাছের দাম বেশী কম হয়ে থাকে। অনেক সময় লোকসান গুনতে হয়।

টেকনাফ উপজেলা জ্যেষ্ঠ মৎস্য কর্মকর্তা মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, বঙ্গোপসাগরে ২৮ কেজি ওজনের বড় পোয়া মাছটি ধরা পড়ার খবরটি শুনেছি। বঙ্গোপসাগরে মাঝেমধ্যেই বড় আকারের পোয়া মাছ ধরা পড়ে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর