Logo
শিরোনাম :
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে স্কাসের কার্যক্রম পরিদর্শন করলেন উপআনুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো ডিজি ডাকাতির প্রস্তুতিকালে দেশীয় অস্ত্রসহ ১৪ রোহিঙ্গা গ্রেপ্তার উখিয়ায় সন্ত্রাসী হামলায় গ্রাম্য চিকিৎসক আহত নেতাকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত এম এ মন্জুর ভালোবাসায় সিক্ত হন অধ্যক্ষ মো. শাহ আলম নৌকার মনোনয়ন নিয়ে এসে ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত চেয়ারম্যান টিপু সুলতান রাজাপালংয়ে নৌকার প্রার্থী জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীর সমর্থনে শোকরানা ও পথ সভা অনুষ্ঠিত খরুলিয়ার গণি বৈরাগী সোয়া ৯ হাজার ইয়াবাসহ গ্রেফতার উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে আবারো প্রার্থী হয়েছি : ইঞ্জিনিয়ার হেলাল উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ
নোটিশ :

আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বগতম>>তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে  সাথে থাকুন  ধন্যবাদ।

চকরিয়ার মাতামুহুরীর চর থেকে বালু উত্তোলন অব্যাহতঃ হুমকিতে ৩ ব্রীজ

চকরিয়া প্রতিনিধি / ২১১ বার
আপডেট সময় : সোমবার, ১৬ নভেম্বর, ২০২০

 

চকরিয়ার মাতামুহুরীর চর থেকে বালু উত্তোলন অব্যাহত রয়েছে। ভ্রাম্যমান আদালতের একাধিক অভিযান-মামলা গ্রেফতারের মধ্যেই অপ্রতিরোধ্যভাবে চলছে এ উত্তোলন ও বিক্রি বাণিজ্য। ফলে আশপাশের জমি সহ হুমকীতে রয়েছে মহাসড়কের চিরিঙ্গা ব্রীজ, বেতুয়া বাজার ব্রীজ ও বাটাখালী ব্রীজ।সরেজমিনে দেখা যায়, চকরিয়াপৌরসভার চিরিঙ্গা ব্রীজ থেকে আমান্যার চর, সাহারবিল মাইজ ঘোনার সংলগ্ন মাতামুহুরী নদীর চরে বালুদস্যুতা চলছেই। এ চরের দুই তীরে ভাঙ্গনের কবলে রয়েছে ঘরবাড়ী সহ শত শত একর মৌসুমী সবজি  ক্ষেত। নদীর চরের মৌসুমী সবজি ক্ষেতের  বুক চিরে বালু উত্তোলন করে বিক্রীতে জড়িত শতাধি ক ডাম্পার ট্রাকের আনাগুনা ক্ষেত খামারের জন্য যেমন চরম সাংঘর্ষিক তেমনি সরকার হারাচ্ছে কোটি টাকার রাজস্ব ও। রাজনৈতিক সেল্টারে আধিপত্যবাদী কতিপয় ব্যক্তি আইনের তোয়াক্কা না করে অবৈধ পন্থায় চলছে বালু উত্তোলন।বাণিজ্যিক এ বালি উত্তোলনে হুমকীতে পরিবেশ প্রতিবেশ। চকরিয়ার ভ্রাম্যমান আদালতের একাধিক অভিযানে গ্রেফতার, অর্থদন্ড সহ মালামাল জব্দের পরও থামছে না বালু দস্যুদের এ দৌরাত্ব।
অধিকতর ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার মাধ্যমে বালু উত্তোলনের বিরুদ্ধে  ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী সচেতন মহলের।
এ ব্যাপারে ভুমি অফিসের এক কাকারা ইউনিয়ন ভুমি তহশিলদার সাইফুল ইসলাম বলেন, বালু দস্যুতায় জড়িতরা সবাই রাজনৈতিক পরিচয় দেয়া সংঘবদ্ধ ব্যক্তি। আইনের কথা বললেই মারমুখি হয়ে উঠে। এমন কি হামলার চেষ্টাও করে। তাই প্রশাসনিক ভাবে পুলিশের সহায়তা ছাড়া তাদের বন্ধ করতে যাওয়া মানে সম্মান নিয়ে টানাটানি। তাই অধিকতর ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার মাধ্যমে বালু উত্তোলনের বিরুদ্ধে  আইনগত আবশ্যক বলে মনে করেন তিনি।
অন্যথায় হুমকীর মুখে পড়বে মাতামুহুরীর চিরিঙ্গা ব্রীজ, বেতুয়া ব্রীজ ও বাটাখালী ব্রীজের স্থায়িত্ব।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর