Logo
নোটিশ :

আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বগতম>>তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে  সাথে থাকুন  ধন্যবাদ।

কক্সবাজারের পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে এবার কোটি টাকা চাঁদা দাবি’র অভিযোগ

ডেস্ক রিপোট   / ১৭৬ বার
আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর, ২০২০

মোবাইল ফোনে গুলি করে ব্যবসায়ীকে হত্যার হুমকির পর এবার আরেক হোটেল ব্যবসায়ীর কাছ থেকে এক কোটি টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগ উঠেছে কক্সবাজারের মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানের ওরফে মুজিব চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে। দেশের শীর্ষ টেলিভিশন চ্যানেল ডিবিসির সচিত্র একটি রির্পোটে এমন তথ্য উঠে এসেছে।

চাঁদাবাজি, দখল-বেদখল নিয়ে এতো দিন সাধারণ মানুষ ভয়ে চুপ ছিল। ভূমি অধিগ্রহণ সংক্রান্ত দুর্নীতির অভিযোগে মেয়র, তার ছেলে ও শ্যালকের অ্যাকাউন্ট থেকে সম্প্রতি ৪ কোটি ২০ লাখ টাকা জব্দের পর মুখ খুলতে শুরু করেছেন অসংখ্য ভুক্তভোগীরা।সমবোঝার নামে সালিশ বেঠকে একটি অডিও রের্কড প্রকাশ পেয়েছে। অডিও রেকর্ডটি কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানের। সালিশে বসে জামান সী হাইটস হোটেলের মালিকের কাছে এক কোটি টাকা চাঁদা দাবি করেন তিনি। এর আগে কক্সবাজারের কলীতলী হোটেল দেলোয়ার প্যারাডাইসের মালিক দেলোয়ার হোসাইন নামে এক হোটেল ব্যবসায়ীকে গুলি করার হুমকির ফোনালাপ গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ ভাইরাল হয়েছে। এসময় নিজেকে মুজিব চেয়ারম্যান পরিচয় দিয়ে দম্ভোক্তির কণ্ঠে গালিগালাজ করে গুলি করে হত্যা করার একটি অডিও রের্কড ফাঁস হয়েছিল।

কক্সবাজারের কলাতলী জামান সী হাইটস হোটেলটি পরিচালনার জন্য দেয়া হয় মেয়রের কাছের লোক হিসেবে পরিচিত আত্মসমর্পণ করা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী শাহজাহান আনসারীকে। হোটেল মালিক তখন জানতেন না শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ীদের তালিকায় আনসারীর নাম রয়েছে।

২০১৯ সালে টেকনাফে ১শ ২ জন ইয়াবা ব্যবসায়ীর সাথে সেও আত্মসমর্পণ করে। এরপর থেকে তাকে হোটেল ছেড়ে দিতে বলা হলে মালিকপক্ষের লোকজনকে পিটিয়ে আহত করে তার বাহিনী।

জামান সী হাইটস হোটেলের মালিক ওয়াহিদুজ্জামান বাবু জানান, ‘মেয়র এক কোটি টাকা দাবি করেছে।’ এদিকে অভিযোগ অস্বীকার করে মেয়র জানান ‘তার কণ্ঠ নকল করে অন্য কেউ এই কাজ করতে পারে।’

অভিযোগ রয়েছে কারাগারে বসেই হোটেলটি ব্যবহার করে ইয়াবা ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করছে শাহজাহান ও তার ভাই সুফিয়ান আনসারী। এ অবস্থায় চাঁদাবাজ ও ইয়াবা ব্যবসায়ীদের ছাড় দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন।

সরকারি প্রকল্পের ভূমি অধিগ্রহণে দুর্নীতি, কমিশন বাণিজ্যসহ নানা অভিযোগে সম্প্রতি কক্সবাজারের মেয়র মুজিবুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুর্নীতি দমন কমিশন।

সুত্র :ডিবিসি টেলিভিশন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর