Logo
শিরোনাম :
হেলেনা জাহাঙ্গীর র‍্যাবের হাতে আটক টেকনাফ থানা পুলিশের অভিযানে ইয়াবা সহ একজন আটক ঈদগাঁও থেকে ৫৬টি পাসপোর্টসহ যুবক আটক;নগদ টাকা উদ্ধার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ উখিয়ার ১২০এলাকায় প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ সহায়তা প্রদান হোয়াইক্যং উলুবনিয়ায় পানিবন্দি ক্ষতিগ্রস্ত দের মাঝে ত্রাণ বিতরণ লঘুচাপের কারণে বৃষ্টি দুই-তিন দিন থাকতে পারে তর্কের জের ধরে কাঞ্জরপাড়ায় প্রতিপক্ষের হামলায় ৩জন আহত টেকনাফ থানা পুলিশের অভিযানে ইয়াবাসহ দুই নারী মাদক ব্যবসায়ী আটক কক্সবাজারে টানা দুই দিনের ভারি বর্ষণে বন্যা ও পাহাড় ধসে ১৭ জনের মৃত্যু উখিয়ায় নিহত পরিবারের মাঝে নগদ টাকা ও খাদ্য সহায়তা প্রদান
নোটিশ :

আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বগতম>>তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে  সাথে থাকুন  ধন্যবাদ।

উখিয়ায় ডাকঘরে তালা!

নিজস্ব প্রতিবেদক / ১৩৭ বার
আপডেট সময় : রবিবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

 

কক্সবাজারের উখিয়ার রত্নাপালং ডাকঘরের কার্যক্রম বেশ কয়েক বছর ধরে বন্ধ রয়েছে। ডাক অফিসের দায়িত্বে নিয়োজিত কর্মকর্তাও দীর্ঘদিন ধরে কক্সবাজারে বসবাস করায় ডাক অফিসের কোন কার্যক্রম নেই বললেই চলে। যে কারণে নিদিষ্ট সময়ে প্রাপকেরা তাদের প্রয়োজনী চিঠিপত্র পায় না বলে অভিযোগ উঠেছে।

খোঁজ খবর নিয়ে জানা যায়, এক সময়ের জনগুরুত্বপূর্ণ রত্নাপালং ডাকঘরটি জন বান্ধব ছিলো। কিন্তু দীর্ঘ ১ দশক ধরে ডাকঘরটির কার্যক্রম ঝিমিয়ে পড়তে শুরু করে। বিশেষ করে ঐ ডাকঘরে নিয়োজিত পোস্ট মাস্টার যোগদানের পর থেকে বিভিন্ন অভিযোগ লেগেই আছে। স্থানীয় ভূক্তভোগী লোকজন অভিযোগ করে জানান, ডাকঘরের পোস্ট মাস্টার রোজিনা আক্তার রোজি দীর্ঘদিন ধরে কর্মস্থলে অনুপস্থিত, দায়িত্বের প্রতি অবহেলার কারণে ডাকঘরটি ভূতুড়ে ঘরে পরিনত হয়েছে। ডাকঘরের চারপাশের আঙ্গিনা আগাছায় ভরে গেছে। কখন ডাকঘরটি খোলা হয়েছিল সে ব্যাপারে কারো জানা নেই।

রত্নাপালং এলাকার শহিদুল্লাহ নামে এক যুবক জানায়, সে গত ৮ মাস আগে সরকারি চাকরির একটি প্রবেশ পত্র এসেছিল। পরীক্ষার নির্ধারিত তারিখের ১ মাস ২১ দিন পর প্রবেশ পত্রটি তার হাতে পৌঁঁছে।একই এলাকার শাসশুর নাহার অভিযোগ করে বলেন, বেসরকারি ব্যাংকের চাকরির জন্য অনেক টাকা খরচ করে আবেদন করেছিলাম। অনেক তদবির করে চাকরিটা অনেকটা নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল কিন্তু ব্যাংক কর্তৃপক্ষ যোগদান পত্র আমার ঠিকানা বরাবরে প্রেরণ করলেও ডাকঘর দিনের পর দিন বন্ধ থাকায় তা আর পাওয়া যায়নি। এ ধরণের অভিযোগ অসংখ্য ভূক্তভোগীর।রত্নাপালং পালং ডাকঘরের নিয়োজিত পোস্ট মাস্টার রোজিনা আক্তার রোজি এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, স্থানীয় কতিপয় দুষকৃতিকারী লোকজন ষড়যন্ত্রমূলকভাবে আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। একদিনের জন্যও ডাকঘরের কার্যক্রম বন্ধ থাকেনি। কিন্তু ডাকঘরের চারপাশের আঙ্গিনার বর্তমান পরিবেশ নিয়ে জানতে চাওয়া হলে সে উত্তর না দিয়ে মুঠোফোনটি কেটে দেন।

উখিয়া উপজেলা ডাকঘরের পোস্ট মাস্টার এস এম জসিম উদ্দিন বলেন, রত্নাপালং পালং ইউনিয়ন ডাকঘরের কর্মরত পোস্ট মাস্টার রোজিনা কার্যক্রম সম্পর্কে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ অবগত রয়েছে। তবে, ঐ ডাকঘরের কর্মরত রানার দিয়ে প্রতিনিয়ত চিঠিপত্র বিতরণ অব্যাহত রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর