Logo
শিরোনাম :
উখিয়ায় বিলুপ্তপ্রায় বাজপাখি উদ্ধার রোহিঙ্গা ছৈয়দ নুরের এনআইডি কার্ড বাতিল করতে নির্বাচন কমিশন সহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ থাইংখালী ব্লাড ডোনার’স ইউনিট-এর অ্যাডমিন আটকের ঘটনায় সংগঠনের বিবৃতি:- উখিয়ায় ১৪ এপিবিএনের সদর দপ্তর উদ্বোধনে অতিরিক্ত আইজিপি উখিয়ায় বালু উত্তোলনের সময় পাহাড়ের মাটি চাপা পড়ে যুবকের মৃত্যু উখিয়ায় তিন লাখ পিস ইয়াবাসহ আটক ২ রেজিষ্টার্ড রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে অস্ত্র, ইয়াবা ও গুলি উদ্ধার এসআই লাভলীকে চাকরি থেকে অব্যাহতি উন্নয়নে পাল্টে গেছে উখিয়ার রাজাপালংয়ের প্রান্তিক জনপদ : সর্বত্র দৃশ্যমান উন্নয়ন প্রকল্প শোভা পাচ্ছে রোহিঙ্গা শিবির থেকে সাড়ে ৯০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার: আটক ২
নোটিশ :

আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বগতম>>তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে  সাথে থাকুন  ধন্যবাদ।

নাইক্ষ্যংছড়ি-গর্জনিয়ায় পশুর হাট জমজমাট :  বিপাকে খামারীরা

মোহাম্মদ ইউনুছ নাইক্ষ্যংছড়ি  / ১৫৪ বার
আপডেট সময় : সোমবার, ২৭ জুলাই, ২০২০

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ৩টি রামু উপজেলার গর্জনিয়া সহ ৪টি কুরবানীর হাট জমলেও বিপাকে রয়েছে খামারীরা।চারটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে গ্রামের পালিত ছোট, মাঝারী বিপুল সংখ্যা গরু রয়েছে। গরুর তুলনায় ক্রেতার সংখ্যা কম থাকায় বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে বিক্রেতাদের মাঝে। নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার চাকঢালা বাজারের ব্যবসায়ী খুরশেদ আলম, বাইশারী বাজারের ব্যবসায়ী বেলাল জানান, দেশে করোনার মন্দাভাব দেখা দেওয়ায় বড় গরু কেনার মত ক্রেতা বড়ই অভাব। ছোট ও মাঝারী বেশ কিছু বিক্রি হচ্ছে তবে অন্যান্য বছরের তুলনায় খুবই অপ্রতুল্য। গত সোমবার সাপ্তাহিক বাজার হিসেবে রামু উপজেলার বৃহত্তর গর্জনিয়া বাজার ঘুরে দেখা গেছে গরু,মহিষ, ভেড়া, ভুষ ইত্যাদি বাজারটিতে চোখে পড়ার মত হলেও তুলনামূলক বিক্রি কম হওয়ায় বিক্রেতারা হতাশ মনে ফিরেছেন বাড়িতে। অপরদিকে খামারী ব্যবসায়ীদের মন্দাভাব দেখা গেছে। কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের তিতার পাড়া খামার ব্যবসায়ী আব্দু রশিদ জানান, তার খামারে ছোট-বড় বিভিন্ন জাতের ২৪টি গরু রয়েছে। তাতে ছোট ১৪টি গরু বিক্রি হলেও বড় গরুগুলো নিয়ে বিপাকে রয়েছেন তিনি সহ অনেকে। তিনি আরো জানান, তার খামারে অষ্ট্রেলিয়ান গাভী, ঝাপসী, পিজিশিয়ান, নেপালী, ছাইওয়াল জাতের গরু রয়েছে। তার মধ্যে চার বছর ধরে লালিত পালিত বেশ কয়েকটি বড় গরু রয়েছে। নেপালী বড় গরুটি দুয়েক বাজারে তুললেও ন্যয্য মূল্য না পাওয়ায় বিক্রি করতে পারিনি। যার মূল্য হাকা হয়েছে ৩ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা। ২ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা পর্যন্ত ক্রেতারা মুলাই। যার ওজন রয়েছে ৭৪৩ কেজি।এমন সু-উচু ৮টি গরু নিয়ে বিপাকে তিনি। তার মতে, বাহিরের বড় ক্রেতা না আসায় আমরা খামারীরা বড় গরু খামারজাত করতে আগ্রহ হারাচ্ছি। অপর খামারী বদরু, এরশাদ উল্লাহ, হাজী আবু তালেব, হাসান, বেলাল সহ অনেকেই জানান, দেশে করোনার প্রভাবে মধ্যবিত্তরা অনেকেই কোরবানী করতে না পারায় বাজারে গরুর চাহিদা কম। তার উপর বড় গরু নিয়ে চিন্তিত আমরা। এই বাজারের ক্রেতা আব্দুস ছালাম জানান, আমরা ৩ জনে মিলে একটি গরু কিনতে এসছি। দাম ক্রয় ক্ষমতায় থাকায় সন্তুষ্ট আমরা। কিন্তু বাজারে কিছু গরুর পায়ে খুরা রোগ দেখা গেছে। এই বিষয়ে বাজারের ইজারাদার সাবেক মেম্বার নজরুল ইসলাম জানান, বাজারে আসা গরুগুলো নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য পশু ডাক্তারের ব্যবস্থা ক্রেতা-বিক্রাদের নিরাপত্তায় ৪০জন ভলেনটিয়ার সহ মাননীয় জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশনায় হ্যান্ড স্যানিটেজর মাস্ক বাধ্যতামুলক সহ দুরত্ব বজায় রেখে আমরা বাজার পরিচালনা করছি। সুবিধা হিসেবে দুর দুরান্ত থেকে আসা ক্রেতাদের গাড়ি পার্কিং এবং জাল টাকা শনাক্তের জন্য ব্যবস্থাও রয়েছে। গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (আইসি) আনিছুর রহমান বিকাল ৪টায় বাজার পরিদর্শন শেষে এ প্রতিবেদককে জানান, পুলিশ মোতায়ন সহ যেহেতু মুসলমানদের বড় ধর্মীয় উৎসবকে স্হানীয়

করতে পুলিশের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক সহযোগীতা করে যাচ্ছি। জাল টাকা রোধে আমরা সচেষ্ট। প্রয়োজনে ক্রেতা-বিক্রেতার নিরাপত্তায় আমরা ব্যাংকের মাধ্যমে তাদের লেনদেনের ব্যবস্থা রেখেছে। সেই সাথে ইজারাদার কর্তৃপক্ষকে এসপি স্যারের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য নাইক্ষ্যংছড়ি সদরে সদর ইউপি চেয়ারম্যানের উদ্যোগে এলাকাবাসীর সুবিধার্থে মাত্র দুইশত হাসিল আগামী শুক্রবার পর্যন্ত প্রতিদিন অস্থায়ী পশুর হাট।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর