Logo
নোটিশ :

আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বগতম>>তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে  সাথে থাকুন  ধন্যবাদ।

পবিত্র জুম্মা নামাজের ফজিলত ও আমল

শাকুর মাহমুদ চৌধুরী / ২১৭ বার
আপডেট সময় : শুক্রবার, ২৪ জুলাই, ২০২০

আজ পবিত্র জুম্মাবার সকল মুসলিম উম্মাহ জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ দিন। পৃথিবীর ইতিহাসে তাৎপর্যবহ দিবসও। ইসলামের ইতিহাসে শুক্রবারে ঘটেছে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা। পবিত্র আশুরা, কারবালার প্রান্তে যুদ্ধ, হয়রত ঈসা (আ:) পৃথিবী থেকে তুলে নেওয়াসহ অগণিত ঘটনা ঘটেছে জুম্মার দিনে।

হয়রত আদম (আঃ) ও হাওয়া (আঃ) আগমন যেমন এই শুক্রবারে। পবিত্র কোরআনে পৃথিবী ধংসের ইঙ্গিত রয়েছে এই শুক্রবারে । মহান রাব্বুল আলামিন পবিত্র কুরআনে জুম্মা নামে একটি স্বতন্ত্র সূরাও নাজিল করেছেন।

পবিত্র কোরআনে জুম্মার নামাজ সর্ম্পকে বলা হয়েছে, তোমার যখন জুম্মার সালাতের আযান শুনবে তখন সমস্ত কাজ বাদ দিয়ে মসজিদের দিকে ধাবিত হও। এটাই তোমাদের জন্য সবচেয়ে কল্যাণ কর।

মহান আল্লাহ পবিত্র কোরআনে জুম্মা সর্ম্পকে আরো বলেছেন, অতঃপর নামায শেষ হলে জমিনে ছড়িয়ে পড় এবং আল্লাহর রহমত সন্ধান কর এবং তোমার প্রভুকে আরো বেশি স্মরণ কর, যাতে তোমরা অনুগ্রহ পেতে পারো। (সূরা জুম্মা আয়াত : ১০)

জুম্মা সর্ম্পেকে রাসূলে করিম (সঃ) অসংখ্য হাদিস বর্ণনা করেছেন। যা অন্য কোন দিন বা বার সর্ম্পকে তিনি করেন নি।

আবূ হুরাইরা (রা:) বর্ণনা করেছেন, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, সকল দিনের মধ্যে সর্বোত্তম দিন হলো জুম্মার দিন। এই দিনে আমাদের আদি পিতা আদম(আঃ)কে সৃষ্টি করা হয়েছে, তাকে বেহেস্ত দান করা হয়েছে এবং এই দিনেই তাঁকে সেখান থেকে বের করা হয়েছে।(সহিহ মুসলিম : ১৪১০)

বিভিন্ন হাদিসে বলা হয়েছে, জুম্মার দিনের মতো ফজিলতপূর্ণ দিন আর কোন জাতিকে দেওয়া হয়নি।এই জুম্মার দিনেই কিয়ামত সংঘটিত হবে।

ইহুদিরা জুম্মার পরের দিন শনিবার উৎসব পালন করে আর খ্রিস্টানরা করে তার পরের দিন রবিবার। (সহিহ মুসলিম : ৮৫৬) একমাত্র মুসলিম জাহান পালন করে শুক্রবারে জুম্মার নামাজের ফজিলতের মাধ্যমে।

আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত, রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, যে ব্যক্তি জুম্মার দিনে গোসল করে পবিত্র হয়ে পরিস্কার কাপড় পরিধান করে মসজিদে প্রথম দিকে প্রবেশ করে আল্লাহ তাকে উট কুরবানির সওয়াব দান করেন।

জুম্মার নামাজের আগে ইমামের খুৎবার দেওয়ার তাগিদ রয়েছে, ইমামের জন্য এটি সুন্নত। মুসল্লিদের জন্য খুৎবা শোনা ওয়াজিব। তাই চুপচাপ বসে গভীর মনোযোগের সাথে খুতবা শুনতে হবে।

তাই আসুন জুম্মার নামাজের দিন দুনিয়াবি নানা কাজের উছিলায় যেন এর ফজিলত ও আমল থেকে শয়তান আমাদের বিচ্যুত করতে না পারে তাই আমরা আগেভাগে আমাদের যাবতীয় কাজ কর্ম সম্পাদন করে নেই।

তারই পাশাপাশি জুম্মার নামাজের প্রস্তুতি স্বরুপ চুল কাটা নখ পরিষ্কার করা সহ গোসল করে পবিত্র হয়ে পরিষ্কার কাপড় চোপড় পরিধান করে পায়ে হেটে মহল্লার মসজিদে উপস্থিত হওয়া সুন্নত তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে পালন করি।

জুম্মার নামাজের যাবতীয় আমল আমরা নিজেরা যেমন করবো, তেমনি আমাদের সন্তান সন্তানাদি ও প্রতিবেশীদেরকেও আমল করার জন্য উৎসাহিত করবো। আল্লাহ আমাদের সবাইকে নেক আমল করার তাওফিক দিন, আমিন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর