রাজধানীর উত্তরার ৬ নম্বর সেক্টরে সাহেদের একটি ব্যক্তিগত কার্যালয় ঘিরে রেখেছে র‍্যাপিট অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। জানা যায়, রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদের প্রতারণার তথ্য-প্রমাণ থাকতে পারে ওই কার্যালয়ে এজন্য ঘিরে রাখা হয়েছে। র‍্যাব ১ অধিনায়ক লেঃ কর্নেল শাফী উল্লাহ বুলবুল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ধারণা করা হচ্ছে ওই বাড়িতে সাহেদকে নিয়ে অভিযান চালানো হতে পারে।এরআগে, রিজেন্ট হাসপাতাল প্রতারণা মামলার প্রধান পলাতক আসামি ও রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পর হেলিকপ্টারে ঢাকায় আনা হয়েছে।

র‍্যাব জানায়, দালালদের মাধ্যমে সীমান্ত পার হয়ে পালানোর চেষ্টা করছে সাহেদ এমন তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালায় র‍্যাব। সারারাত অভিযান শেষে সকাল ৫.১০ মিনিটে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় সাহেদর সাথে ৩ রাউন্ড গুলিসহ অবৈধ পিস্তল পাওয়া যায়।এর আগে, করোনা পরীক্ষা না করেই সার্টিফিকেট প্রদানসহ বিভিন্ন অভিযোগে রিজেন্ট হাসপাতালের বিরুদ্ধে গত ৮ জুলাই মামলা করে র‌্যাব। উত্তরা পশ্চিম থানায় রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মো. সাহেদকে প্রধান আসামি করে ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করা হয়।

গত ৬ জুলাই সোমবার র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত রিজেন্ট হাসপাতালের দুটো শাখায় (উত্তরা ও মিরপুর) অভিযান চালায়। বিভিন্ন অভিযোগের কারণে শাখা দুটির কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়।