Logo
নোটিশ :

আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বগতম>>তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে  সাথে থাকুন  ধন্যবাদ।

সানাউল্লাহর ডানহাত জাহেদ বাহিনীর প্রধান  জাহেদুল ইসলাম প্রকাশ জাইদুল্লা পুলিশের হাতে আটক 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ / ৩১৮ বার
আপডেট সময় : শনিবার, ১১ জুলাই, ২০২০

গত কয়েকবছর ধরে ইয়াবা ব্যবসা, মানব পাচার, ভূমিদস্যুতা, চাঁদাবাজি, চুরি, ছিনতাই এর মাধ্যমে সোনাইছড়িতে ত্রাসের রাজত্ব চালিয়ে আসা জাহেদুল ইসলাম প্রকাশ জাইদুল্লা অবশেষে আজ শনিবার ভোরে  উখিয়া থানার পুলিশের হাতে  আটক হয়।  জানা যায়, জাহেদ বাহিনীর প্রধান জাইদুল্লা গোটা দশেক মামলার আসামী এবং এ নিয়ে দুইবার পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছে। ২০১৫ সালে মানবপাচার করতে গিয়ে প্রথম র‍্যাবের হাতে গ্রেপ্তার হয়। একমাস জেল খাটার পর জামিনে মুক্তি পেয়ে আবারো তার সন্ত্রাসী কর্মকান্ড শুরু করে।২০১৬ সালে দক্ষিন সোনাইছড়িতে জমি দখল করতে গিয়ে মারধর ও নারী লাঞ্চিত করার কারণে তার বিরদ্ধে মামলা দায়ের করেন আব্দুল্লাহ। মামলা নং-৬৮৯৫(৩)/১ তারিখ ০৮/১২/২০১৬ খ্রিঃ।

২০১৮ সালের পরে সানাউল্লাহর ছত্রছায়ায় এবং স্থানীয় ছাত্রদলের ক্যাডার ভিত্তিক রাজনীতির মাধ্যমে হয়ে উঠে আরো বেপরোয়া। দুবাই কাসেম মার্কেট হয়ে উঠে তার আঁতুড় ঘর। এর সাথে যুক্ত হয় ইব্রাহিম, জাইদ্দা, রুবেইল্লা। জুয়া ও ইয়াবার আসর বসিয়ে গ্রামের বখে যাওয়া ছেলেদের তার বাহিনীতে ভর্তি করে। রাতে বাড়িতে বাড়িতে চুরি করে। তাদের সুপারি চুরি ও ছিনতাইয়ে এলাকাবাসী থাকে ভীতসন্ত্রস্ত।জাহেদ বাহিনীর কার্যকলাপের বিরুদ্ধে কথা বলায় স্থানীয় ব্যাংক কর্মকর্তার বাড়িতে আক্রমণ করে তাকে মারধর সহ ঘর বাড়ি, মোটর সাইকেল ভাংচুর করে। এ ঘটনায় তিনি থানায় বাদী হয়ে মামলা করেন। এরপর এই নরপশুর সন্ত্রাসের শিকার হয় দক্ষিন সোনাই ছড়ির সায়েরা খাতুন।গত এক সপ্তাহে তার বিরদ্ধে রুজু হয় দুইটি মামলা। গুন্ডাবাহিনী সহ দক্ষিন সোনাইছড়ির আলী আযমের জমি দখল করতে গিয়ে আলী আযমের স্ত্রীকে মারধর করে গুরুতর আহত করে যার কারণে সন্তানসম্ভবা আলী আযমের স্ত্রীর গর্ভপাত হয়।

সানাউল্লাহ ও তার ভাই আনসার বাহিনী ও জাহেদ বাহিনীর সন্ত্রাস, মানব পাচার, ইয়াবা ব্যবসার প্রতিবাদী কন্ঠস্বর স্থানীয় আওয়ামীলীগের প্রবীণ নেতা সোলতান আহম্মদকে হত্যাচেষ্টার অন্যতম আসামি হচ্ছে জাহেদুল ইসলাম প্রকাশ জাইদুল্লাহ।

এছাড়াও এনজিও কর্মী দেলোয়ার হোসেন হত্যাচেষ্টা মামলায় তার সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। রামু ও উখিয়ার বৌদ্ধ মন্দির হামলার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে দেখা যায়, তারা জাইদুল্লার গ্রেপ্তারে প্রশাসনের প্রতি আস্থা ফিরে পেয়েছে। তারা আনসার বাহিনীর প্রধান আনসারুল্লাহ ও গডফাদার সানাউল্লাহর দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবী জানায়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর