Logo
নোটিশ :

আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বগতম>>তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে  সাথে থাকুন  ধন্যবাদ।

রাউজানে মানসিক প্রতিবন্ধীর মৃত্যু

রাউজান প্রতিনিধি / ১৬৩ বার
আপডেট সময় : শনিবার, ৪ জুলাই, ২০২০

 

রাউজানে মুরগির খামারে বিদ্যুতিক তার দ্বারা পাতানো ফাঁদে এক মানসিক প্রতিবন্ধীর মৃত্যু হয়েছে। ৪ জুলাই বিকাল ৪টার দিকে উপজেলার ৯নং পাহাড়তলী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের মহামুনি বিহারের পূর্ব পাশে চিন্তাদির ঘাটা নামক স্থানে ডিম উৎপাদনকারী মুরগির খামারে (লেয়ার) এই ঘটনাটি ঘটে। স্থানীয় ইউপি সদস্য লিটন বড়ুয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, খামারটির মালিক স্থানীয় প্রসেনজিৎ চৌধুরী ও লাবু বড়ুয়া। শেয়ালসহ নানান বন্য প্রাণী বধ করার জন্য খামারের চারপাশে বিদ্যুতিক তারের পাতানো হয় ফাঁদ । ঐ ফাঁদে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে একজন মানসিক প্রতিবন্ধীর মৃত্যু হয়েছে। বিকাল ৫টার দিকে তার স্বজনরা তাকে মৃত উদ্ধার করে নিয়ে যায়।
জানা যায়, নিহত মানসিক প্রতিবন্ধীর নাম নুরুল আবচার প্রকাশ নুরু পাগলা(৬০)। তিনি একই ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের শেখপাড়া গ্রামের দারোগা’র বাড়ির মৃত বাদশা মিয়ার মেজ পুত্র।
নিহতের ভাই নুর মোহাম্মদ জানান, বেলা আড়াইটার দিকে গাভীর জন্য ঘাস কাটার উদ্দেশ্যে ঘর হতে বের হয়। বিকাল পাঁচটার দিকে মোবাইল ফোনে জানতে পারি মহামুনি বিহারের পাশে একটি মুরগির খামারে আমার ভাইয়ের লাশ পড়ে আছে। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি খামারের পাশে একটি চটের বস্তার উপর পলিথিন দ্বারা লাশ ঢাকা আছে। ৬টার দিকে লাশ বাড়িতে নিয়ে আসি। আড়াইটার দিকে ঘাস কাটতে যাওয়া পথে আমার ভাই মারা যায়। কিন্তু তারা আমাদের কোন খবর না দিয়ে লাশ চটের বস্তায় ঢেকে রাখেন। আমার কাছে আমার ভাইয়ের মৃত্যু রহস্যজনক মনে হচ্ছে। এই ব্যাপারে খামারের মালিক লাবু বড়ুয়ার সাথে মোবাইল ফোনে বারবার যোগাযোগ করা হলে বন্ধ পাওয়া যায়।স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রোকন উদ্দিন বলেন, খামারে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নুরু পাগলা নামে এক মানসিক প্রতিবন্ধী মৃত্যুর সংবাদ শুনেছি। তবে, কোন পক্ষই আমার সাথে যোগাযোগ করেন নি। তবে, খামারে দিন দুপুরে বন্যপ্রাণী মারার জন্য যে বৈদ্যুতিক ফাঁদ বসানো হয়েছে তা মারাত্মক অন্যায়।
বন্যপ্রাণী বধের পাতানো ফাঁদ সম্পর্কে রাউজান উপজেলা বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ কর্মকর্তা ফরিদ উদ্দিন বলেন, ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখতে হবে ফাঁদটি বন্যপ্রাণী হত্যার ফাঁদ কিনা। আর ফাঁদে যদি কোন বন্যপ্রাণী মারা যায় তাহলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।রাউজান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কেপায়েত উল্লাহ পিপিএম বলেন, আমার এখনও পর্যন্ত এই ধরনের কোন সংবাদ পায় নি। বিষয়টি আমরা দেখছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর