Logo
নোটিশ :

আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বগতম>>তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে  সাথে থাকুন  ধন্যবাদ।

মহেশখালীতে বনকর্মীদের অভিযানে গর্জন গাছ উদ্ধার

মহেশখালী প্রতিনিধিঃ / ২৮৫ বার
আপডেট সময় : শুক্রবার, ১৯ জুন, ২০২০

 

চট্টগ্রাম দক্ষিণ বন বিভাগের আওতাধীন মহেশখালী রেঞ্জের শাপলাপুর বিটের ষাইটমারার ধুল্ল্যা ছড়ি পাহাড় থেকে বনাঞ্চলের মূল্যবান মাদার ট্রি তথা গর্জন গাছ কেটে; পাশ্ববর্তী উপজেলার বদরখালী পাচার করার অভিযোগ উঠেছে কিছু বন দস্যুদের বিরুদ্ধে।

তথ্যমতে গতরাত ১৮ ই জুন রাতের আধারে প্রায় ৮-১০ টি গর্জন গাছ কেটে পাচারের উদ্দেশ্যে নিয়ে যায় স্থানীয় গাছ চোরাকারবারি হাসানের নেতৃত্বে একদল বনদস‍্যু। এসময় বদরখালী গাছ পাচার হওয়ার গোপন সূত্রে খবর পেয়ে উপজেলা রেঞ্জ অফিসার সুলতানুল আলম চৌধুরীর নির্দেশে শাপলাপুর বিট কর্মকর্তার নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে বদরখালীর পার্শ্ববর্তী পুরাতন ঘোনা নামক স্থান থেকে একটি গাছ জব্দ করা হয়। তবে বাকি গাছগুলো ততক্ষণে পাচার হয়ে যায়।

এদিকে স্থানীয় বনবিভাগের অভিযোগ, সংরক্ষিত বনাঞ্চলের এ মূল্যবান গর্জন (মাদার ট্রি) গাছ কেটে সাবাড় করছে স্থানীয় রহমত আলীর ছেলে -হাসান ও তার সহযোগীরা। এছাড়া প্রতিনিয়ত পাহাড়ী মাটি ও বালি পাচারের অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন জানায়, বনখেকো ষাইটমারার হাসান ও বদরখালীর আব্দু শুক্কুর এর সিন্ডিকেটে বদরখালীতে প্রতিনিয়ত গাছ পাচার করে আসছে। এদের বিরুদ্ধে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নিলে বনাঞ্চল বিরাট ক্ষতির সম্মুখীন হবে।

শাপলাপুর বিট কর্মকর্তা ইব্রাহিম রাজীব বলেন,
কিছু বনদস‍্যু রাতের আধারে গাছ কেটে পাচার করার খবর পেয়ে উপজেলা রেঞ্জ অফিসার সুলতানুল আলম চৌধুরীর নির্দেশে তাৎক্ষণিকভাবে আমরা অভিযান চালিয়ে পুরাতন ঘোনা থেকে একটি গাছ উদ্ধার করি। জড়িতদের আইনের আওতায় আনার চেষ্টা চলছে।

এ বিষয়ে উপজেলা রেঞ্জ কর্মকর্তা সুলতানুল আলম চৌধুরীর কাছে জনতে চাইলে তিনি জানান,
গোপন খবরের ভিত্তিতে আমাদের বনকর্মীরা অভিযান চালিয়ে একটি গাছ উদ্ধার করে। বাকি গাছগুলোও উদ্ধারের চেষ্টা অব‍্যাহত রয়েছে। অপরাধে জড়িত কাউকেই ছাড় দেওয়া হবেনা। আমরা তদন্ত পূর্বক আইনি ব‍্যবস্থা নিচ্ছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর