Logo
নোটিশ :

আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বগতম>>তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে  সাথে থাকুন  ধন্যবাদ।

সীতাকুণ্ডে দুই দিনে ৩৪ পুলিশ সদস্যের নমুনা পরীক্ষা

সৌমিত্র চক্রবর্তী, নিজস্ব সংবাদদাতা, সীতাকুণ্ড / ৩১৪ বার
আপডেট সময় : রবিবার, ৭ জুন, ২০২০

 

সীতাকুণ্ডে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। আশংকাজনক হারে বেড়েছে করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুর ঘটনাও। গত তিন দিনে এখানে করোনার উপসর্গ নিয়ে এক পুলিশ সাব-ইন্সপেক্টরসহ ৬ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। ফলে সর্বত্র আতংক সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে এক পুলিশ অফিসারের মৃত্যুর পর দুই দিনে মোট থানার ৩৪ জন পুলিশ সদস্য করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা প্রদান করেছেন। এদের মধ্যে মৃত এস.আই একরামুল ইসলামের শরীরে করোনার অস্তিত্ব মিলেছে। এছাড়া অন্যদের পরীক্ষার ফলাফল এখনো আসেনি।
উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, সীতাকুণ্ডে করোনা সংক্রমনের হার লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ করোনার উপসর্গ নিয়ে নমুনা পরীক্ষার জন্য আসছেন। এর মধ্যে গত তিন দিনে ৬ জন উপসর্গ নিয়ে মারা গেছে। এদের মধ্যে শুধু গত শনিবার একদিনেই জ্বর-শ্বাসকষ্ট নিয়ে মারা যান থানার সাব ইন্সপেক্টর মোঃ একরাম সহ চারজন। খবর পেয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা তার নমুনা সংগ্রহ করেন। এর আগের রাতেও থানার ওসি ইন্টিলিজেন্সসহ দুই জনের করোনা প্রজেটিভ হয়। এসব ঘটনায় থানার পুলিশ সদস্যদের মধ্যে চরম আতংক সৃষ্টি হয়। ফলে শনিবার থানার পুলিশ সদস্যদের মধ্যে ২৪ জন গিয়ে তাদের নমুনা প্রদান করে আসেন। এছাড়া রবিবার নমুনা প্রদান করেছেন আরো ১০ জন। সব মিলিয়ে দুই দিনে ৩৪ জন পুলিশ সদস্য নমুনা প্রদান করলেও জরুরী ভিত্তিতে মৃত এস.আই একরামের নমুনা পরীক্ষা হলে তাতে করোনা প্রজেটিভ আসে। অন্য ৩৩ জনের ফলাফল আসেনি। সীতাকুণ্ড মডেল থানার ওসি মোঃ ফিরোজ হোসেন মোল্লা বলেন, থানার ৮-১০ জন সদস্য গত কিছু দিন ধরে জ্বর সর্দি-কাশি ইত্যাদিতে ভুগছিলেন। প্রথম দফায় কয়েকদিন আগে তিন জন নুমনা দিলে শুক্রবার রাতে ওসি ইন্টেলিজেন্স সুমন বণিক ও গাড়ি চালক তৌহিদের করোনা ধরা পড়ে। পরদিন শনিবার সকালেই মারা যান এস.আই একরামুল ইসলাম। এর ফলে সবার মধ্যে আতংক সৃষ্টি হলে দুই দিনে মোট ৩৪ জন নমুনা প্রদান করেন। এর মধ্যে একরাম প্রজেটিভ হয়েছে। অন্যদের নমুনার ফলাফল পাওয়া যায়নি। তিনি আরো বলেন, যারা নমুনা দিয়েছেন তাদের বেশিরভাগেরই শরীরে কোন উপসর্গ নেই। কিন্তু তারা এস.আই একরামের লাশের কাছাকাছি গেছেন বা তার সাথে মিশেছিলেন বলেই নমুনা প্রদান করেছেন। তবে ওসি ফিরোজ হোসেন মোল্লা নিজে এখনো পরীক্ষা করেননি। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি যদি কোনরকম লক্ষন দেখি তবেই পরীক্ষা করব।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর