Logo
নোটিশ :

আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বগতম>>তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে  সাথে থাকুন  ধন্যবাদ।

সীতাকুণ্ডের করোনা যোদ্ধারাও আক্রান্ত হচ্ছেন

সৌমিত্র চক্রবর্তী, সীতাকুণ্ড / ৩০০ বার
আপডেট সময় : শনিবার, ৬ জুন, ২০২০

 

সীতাকুণ্ডে দীর্ঘদিন ধরে করোনা ভাইরাসের সংক্রমনের ভয় উপেক্ষা করে জনসেবা দিয়ে যাওয়া করোনা যোদ্ধারাও একে একে আক্রান্ত হচ্ছেন। আক্রান্ত সন্মুখযোদ্ধাদের এ তালিকায় আছেন পুলিশ, স্বাস্থ্যকর্মী, জনপ্রতিনিধি ও পৌর কর্মচারীসহ বিভিন্ন পেশার মানুষ। এতে সর্বমহলে আতংক আর উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়ছে। তবে আক্রান্ত এসব যোদ্ধার জন্য উদার চিত্তে দোয়া চাইছেন এলাকার সাধারণ মানুষসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দেশে করোনা ভাইরাসের পাদুর্ভাব ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে সীতাকু- উপজেলা নির্বাহী অফিসার, থানার অফিসারবৃন্দ, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা, সাংবাদিক ও জনপ্রতিনিধিরা নিজ নিজ অবস্থান থেকে এলাকার মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। কিন্তু জনতার স্বার্থে সব ভয়কে উপেক্ষা করে নিরবিচ্ছিন্ন সেবা দিতে গিয়ে ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকজন কিছু করোনা যোদ্ধা আক্রান্ত হয়েছেন কোভিট-১৯ নামক এই ভাইরাসে। এর মধ্যে শনিবার সকালে সীতাকুণ্ড থানার উপ-পরিদর্শক মোঃ একরামুল হক জ্বর-শ্বাসকষ্টে মারাও গেছেন। যদিও তার মধ্যে করোনার সব উপসর্গ থাকলেও আগে তিনি করোনা পরীক্ষা করেননি। তবে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা শনিবার তার মৃতদেহ থেকে উপসর্গ সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। এই অফিসারটি জ্বর ও শ্বাস কষ্টে আক্রান্ত হবার পরেও প্রতিদিন ডিউটি করেছেন বলে জানিয়েছেন ওসি (তদন্ত) মোঃ শামীম শেখ। কিন্তু অসুস্থতা বেশি হওয়ায় গত ১লা জুন থেকে তিনি ছুটিতে থাকা অবস্থায় শনিবার সকালে মারা যান। অন্যদিকে ইতিমধ্যে করোনা প্রজেটিভ হয়েছেন করোনার আরেক সন্মুখযোদ্ধা থানার ওসি (ইন্টিলিজেন্স) সুমন বণিক, গাড়ি চালক তৌহিদুল ইসলামও। সুমন বণিক শুরু থেকেই প্রত্যেকটি করোনা আক্রান্ত রোগির বাড়ি গিয়ে লকডাউন করাসহ এলাকার মানুষের সু-স্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে বাজার মনিটরিংসহ কর্তৃপক্ষের প্রতিটি নির্দেশ পালন করে এই এলাকাকে করোনা মুক্ত রাখতে সচেষ্ট ছিলেন। কিন্তু শুক্রবার রাতে তারও করোনা প্রজেটিভ হয়। এর কয়েকদিন আগে থেকেই অসুস্থতার কারণে হোম কোয়ারেন্টাইনে চলে যান তিনি। এছাড়া লকডাউনের পর থেকে সীতাকুণ্ড পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডে জনপ্রতিনিধিদের সাথে ঘুরে ও তাদের নির্দেশ মত এলাকাবাসীর সেবায় নিয়োজিত থাকা পৌর কর্মচারী টিকাদান কর্মসূচীর সুপার ভাইজার মোঃ নিজাম উদ্দিনও আক্রান্ত হয়েছেন করোনায়। তার প্রসঙ্গে সীতাকুণ্ড পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব বদিউল আলম বলেন, করোনা মহামারী আরম্ভ হবার পর থেকে নিজাম উদ্দিন অকুতোভয় হয়ে নিরলসভাবে পরিশ্রম করে গেছেন। জনগণের সেবা করতে করতেই তিনি করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এ প্রসঙ্গে নিজাম উদ্দিন বলেন, করোনার ভয়ে অনেকেই ঘরে বসেছিলেন। কিন্তু আমি কর্তব্যের জন্য সব ভয় উপেক্ষা করেছিলাম। দিন-রাত কোথা দিয়ে গেছে আমি জানি না। মেয়র মহোদয়, কাউন্সিলরগণের নির্দেশ ও এলাকাবাসীর প্রয়োজনে আমি পৌরসভার আনাচে কানাচে গেছি। এখন আমিই করোনা আক্রান্ত হলাম। সবার দোয়া চান তিনি। করোনার এ সময়ে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছে সীতাকুণ্ড হাসপাতালের গাড়ি চালক, ২জন পরিবার পরিকল্পনা কর্মীসহ স্বাস্থ্য কর্মীর পরিবারের সদস্য। আক্রান্ত হয়েছিলেন বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের এক ইউপি সদস্য সেলিম উদ্দিনও। এদিকে একে একে করোনার সন্মুখযোদ্ধারা আক্রান্ত হতে শুরু করায় এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে আতংক সৃষ্টি হলেও অসংখ্য মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে এসব যোদ্ধাদের ভূয়সী প্রশংসা করে তাদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর