Logo
শিরোনাম :
উখিয়ায় বিলুপ্তপ্রায় বাজপাখি উদ্ধার রোহিঙ্গা ছৈয়দ নুরের এনআইডি কার্ড বাতিল করতে নির্বাচন কমিশন সহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ থাইংখালী ব্লাড ডোনার’স ইউনিট-এর অ্যাডমিন আটকের ঘটনায় সংগঠনের বিবৃতি:- উখিয়ায় ১৪ এপিবিএনের সদর দপ্তর উদ্বোধনে অতিরিক্ত আইজিপি উখিয়ায় বালু উত্তোলনের সময় পাহাড়ের মাটি চাপা পড়ে যুবকের মৃত্যু উখিয়ায় তিন লাখ পিস ইয়াবাসহ আটক ২ রেজিষ্টার্ড রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে অস্ত্র, ইয়াবা ও গুলি উদ্ধার এসআই লাভলীকে চাকরি থেকে অব্যাহতি উন্নয়নে পাল্টে গেছে উখিয়ার রাজাপালংয়ের প্রান্তিক জনপদ : সর্বত্র দৃশ্যমান উন্নয়ন প্রকল্প শোভা পাচ্ছে রোহিঙ্গা শিবির থেকে সাড়ে ৯০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার: আটক ২
নোটিশ :

আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বগতম>>তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে  সাথে থাকুন  ধন্যবাদ।

পেকুয়ায় মারপিটে আহত প্রবাসী যুবকের মৃত্যু

নাজিম উদ্দিন,পেকুয়া / ২৯৫ বার
আপডেট সময় : শনিবার, ৩০ মে, ২০২০

কক্সবাজারের পেকুয়ায় মারপিটে আহত ওমান প্রবাসী আনোয়ার হোসেন (২৫)অবশেষে দীর্ঘ এক সপ্তাহ মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে চট্টগ্রামের সিএসটিসি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরন করেন। নিহত আনোয়ার হোসেন পেকুয়া সদর ইউনিয়নের মইয়াদিয়া গ্রামের আশরাফ মিয়ার ছেলে। গত ২৩ মে দুপুরে মগকাটা গ্রামে মারপিটে তিনি ছুরিকাঘাত হন। ওইদিন তাকে গুরুতর জখম অবস্থায় প্রথমে পেকুয়া সরকারী হাসপাতাল, পরে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে ওইদিন সন্ধায় তাকে চট্টগ্রামের সিএসটিসি হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে (২৯মে) শুক্রবার রাত ৯টা ১৫ মিনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নিহতের স্বজন জালাল উদ্দিন। এদিকে শনিবার সকালে নিহত আনোয়ার হোসেনের মরদেহ নিজ এলাকা মইয়াদিয়া পৌছলে শত শত উৎসুক নারী পুরুষ তাকে দেখতে ভীড় জমায়। পেকুয়া থানা পুলিশ মরদেহ থানায় নিয়ে যান। পেকুয়া থানার এসআই সঞ্জিত চন্দ্র নাথ জানায়, মরদেহ থানায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। বিস্তারিত ওসি স্যার জানবেন। স্থানীয়সুত্রে জানা গেছে, গত ২৩ মে সদর ইউনিয়নের দক্ষিন বটতলীয়া পাড়া গ্রামে সকাল ১১টার দিকে একটি শালিস বিচার শেষে বাড়ি ফিরছিলেন আনোয়ার হোসেন। পথিমধ্যে তাকে দু’পক্ষের মধ্যে মারপিট হয়। এ সময় আনোয়ার হোসেন ছুরিকাঘাত হয়। মাথায় মারাত্বক জখম হয় তার। জানা গেছে, সদর ইউনিয়নের দক্ষিন বটতলীয়া পাড়ার আকতার হোসেনের ছেলে নুরুল ইসলাম ও একই ইউনিয়নের মগকাটা এলাকার আবুল শামার ছেলে নেছার আহমদের মধ্যে ৩শ টাকার লেনদেনের বিষয় নিয়ে গত ১০দিন আগে ঝগড়া হয়। নুরুল ইসলাম ও নেছার আহমদ সম্পর্কে মামা-ভাগিনা। মামা-ভাগিনার ঝগড়া থামাতে গিয়ে আহত হন নানা। ঘটনার দিন সকালে নানা-নাতনির মারপিটের বিষয় নিয়ে শালিসি বৈঠক হয়। বৈঠকে ইউপি সদস্য সাজ্জাদ হোসেনসহ তিন গ্রামের সমাজপতিরা তাদের বিরোধ নিষ্পত্তি করে দিয়েছেন। আনোয়ার হোসেন ওইদিন শালিস বিচার দেখতে গিয়েছিলেন।
নিহত আনোয়ার হোসেনের স্বজনরা জানায়, গত ৫মাস আগে আনোয়ার হোসেন সফরে আসেন। ছুটির মেয়াদকাল শেষ হলেও করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারনে ওমান যাওয়া সম্ভব হয়নি। তিনি বিয়ে করতে দেশে এসেছিলেন বলে জানিয়েছেন তার মা ছেনুয়ারা বেগম।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর