Logo
শিরোনাম :
উখিয়ায় বিলুপ্তপ্রায় বাজপাখি উদ্ধার রোহিঙ্গা ছৈয়দ নুরের এনআইডি কার্ড বাতিল করতে নির্বাচন কমিশন সহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ থাইংখালী ব্লাড ডোনার’স ইউনিট-এর অ্যাডমিন আটকের ঘটনায় সংগঠনের বিবৃতি:- উখিয়ায় ১৪ এপিবিএনের সদর দপ্তর উদ্বোধনে অতিরিক্ত আইজিপি উখিয়ায় বালু উত্তোলনের সময় পাহাড়ের মাটি চাপা পড়ে যুবকের মৃত্যু উখিয়ায় তিন লাখ পিস ইয়াবাসহ আটক ২ রেজিষ্টার্ড রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে অস্ত্র, ইয়াবা ও গুলি উদ্ধার এসআই লাভলীকে চাকরি থেকে অব্যাহতি উন্নয়নে পাল্টে গেছে উখিয়ার রাজাপালংয়ের প্রান্তিক জনপদ : সর্বত্র দৃশ্যমান উন্নয়ন প্রকল্প শোভা পাচ্ছে রোহিঙ্গা শিবির থেকে সাড়ে ৯০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার: আটক ২
নোটিশ :

আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বগতম>>তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে  সাথে থাকুন  ধন্যবাদ।

ফটিকছড়ির খিরামে ঈদের নামাজ শেষে ফেরার পথে ইউ.পি সদস্যকে গুলি করে হত্যা

বিশ্বজিৎ রাহা, ফটিকছড়ি / ২৫৫ বার
আপডেট সময় : সোমবার, ২৫ মে, ২০২০

 

আজ সোমবার(২৫মে) উপজেলার খিরামে মো. জব্বার (৪২) নামে এক ইউ.পি সদস্যকে ঈদের নামাজ শেষে ফেরার পথে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। ২৫ মে (সোমবার) সকাল ১০টার দিকে উপজেলার খিরাম ইউনিয়নের চৌমুহনী বাজারে এই ঘটনা ঘটেছে। নিহত মো. জব্বার খিরাম ইউনিয়ন পরিষদের ৫ নং ওয়ার্ডের নির্বাচিত সদস্য।

খিরাম ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের পর থেকে বিবাদমান দুই গ্রুপের মধ্যে অন্তর্দ্বন্দ্বের জেরে এই হত্যাকাণ্ড হয়েছে বলে ধারণা করছে স্থানীয়রা। ঘটনার পর পর ওই এলাকায় ব্যাপক পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছ।

ঘটনাস্থলে যাওয়া চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হাটহাজারী সার্কেল) আবদুল্লাহ আল মাসুম বলেন, ‘জব্বার মেম্বার নামাজ পড়ে ফিরছিলেন। চৌমুহনী বাজারে তাকে সন্ত্রাসীরা অ্যাটাক করে। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তাকে নাজিরহাটে হাসপাতালে নেওয়ার পর ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেছেন।’

তিনি অারো বলেন, ‘আমরা প্রাথমিক তদন্তে জানতে পেরেছি জব্বারের সঙ্গে খিরাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেনের বিরোধ ছিল। সেই বিরোধ থেকেই খুনের ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তারা দুই জনই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। আমরা ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা করছি।’

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চেয়ারম্যান ও জব্বার মেম্বারের অনুসারীদের মধ্যে রোববার রাতে খিরাম বাজারে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া এবং গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এর জেরে সোমবার সকালে জব্বারকে একা পেয়ে সন্ত্রাসীরা আক্রমণ করে। এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে ফটিকছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান হোসাইন মো, আবু তৈয়ব, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো, সায়েদুল আরেফিন, ফটিকছড়ি থানার ওসি বাবুল আক্তার প্রমুখ ঘটনাস্থলে ছুটে যান। তবে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত পুলিশ কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর