Logo
নোটিশ :

আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বগতম>>তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে  সাথে থাকুন  ধন্যবাদ।

বাহুবলের দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ব্যক্তির মৃত্যুর গুজব শুনেপ্রতিপক্ষের লুটপাটের তান্ডব! সহিংসতার গ্রাম বক্তারপুর!

বাহুবলের দু'পক্ষের সংঘর্ষে আহত ব্যক্তির মৃত্যুর গুজব শুনেপ্রতিপক্ষের লুটপাটের তান্ডব! সহিংসতার গ্রাম বক্তারপুর! / ২০০ বার
আপডেট সময় : শনিবার, ২৩ মে, ২০২০

 

বাহুবল (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার বক্তারপুর গ্রামে পূর্ব বিরোধের জের ধরে গত ১৮ মে মুক্তার মিয়া, আকল মিয়া ও ছোরাব আলী ও অপর পক্ষে হাজী রুছমত খা,করিম মেম্বার ও আব্দুল আহাদ এর লোকজনের মধ্যে দুপক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়।

সংঘর্ষে মুক্তার মিয়ার পক্ষের জাহিরুল ইসলাম ও রুছমত খা’র পক্ষের আল আমিন গুরুতর আহত হয়ে বর্তমানে উভয়ই সিলেট ওসমানী মেডিকেলে চিকিৎসাধীন আছেন। এদিকে গত (২২ মার্চ) রাত অনুমান ১০টারদিকে একটি সংবাদ মুখে মুখে ভাইরাল হয় মুক্তার মিয়ার পক্ষের আহত জাহিরুল ইসলাম মারা গেছেন।

এই সংবাদ পেয়েই মুক্তার মিয়ার পক্ষের সাজিদ, লাইছ, মস্তফা, আজিদ,মোতালিব, জুয়েল, আব্দাল, খালেক,সারু, আজিজুল, রুবেল, রাসেল, হেলাল, ইংরাজ, রহমত,রমিজ সহ উত্তেজিত শতাধিক লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে রুছমত খা’র পক্ষের আবুল হাসিম, জাহির আলী, হায়দর আলী, দিদার আলী, সরফ আলী,বাচ্চু মিয়া,আব্দুল লতিফ, আছান উল্লা,শামীম মিয়া,সিজিল মিয়া ও উসমান উল্লা প্রমুখ লোকজনের প্রায় ১২/১৩টি বাড়িঘর ভাংচুর,ধান চাল, অলংকারাদি,গরু বাছুর নিয়ে লুটপাটের তান্ডব চালায়।
এতে নগদ টাকা স্বর্ণলংকারসহ প্রায় ৩০ লক্ষ টাকার মালামাল লুট হয়েছে বলে দাবী করেন স্থানীয় মেম্বার সহ বাসিন্দারা। খবর পেয়ে বাহুবল মডেল থানার ওসি কামরুজ্জামান মিলনের নেতৃত্বে বিশাল পুলিশ বহর গিয়ে ঘটনাস্থল ও রাস্তা থেকে সন্দেহ ভাজন ১০/১২জনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন।
প্রতিপক্ষের হামলার আশংকা টের পেয়ে রুছমত খা’র লোকজন বাড়ি থেকে হাওরের দিকে পালিয়ে আত্মরক্ষা করেন। এসুয়োগে মুক্তারের লোকজন নিরাপদে বাড়িঘর ভাংচুর লুটপাট চালিয়ে সবাই যার যার নিরাপদ অবস্থানে চলে যায়। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় মুক্তার মিয়ার লোকজনের দ্বারা সংঘটিত রাতের তান্ডবলীলা।
বসতঘরের টিনের বেড়া কেটে চুরমার করা হয়, অনেক বাড়ির বিদ্যুতের মিটার ভাংচুর করা হয়, ডিজেল মেশিন, ঘরে রক্ষিত শতশত মণ বস্তা ভর্তি ধান লুট, অনেকের ফ্রিজ ভাংচুর করা হয়। আবার অনেকের ঘরের সুকেশ ভাংচুর করে হাতিয়ে নেয়া হয় নগদ টাকা।

এ ঘটনার পর পর রুছমত খা’র অনেক পুরুষ লোকজন মুক্তারের লোকজনের ভয়ে বাড়িছাড়া রয়েছেন। এ অবস্থায় বাড়ির মহিলা ও শিশুরাসহ অনেকেই বাড়িতে আতংকে আছেন। উল্লেখ্য, ওই গ্রামে প্রায় সময়ই আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কিছু দিন পর পরই বিভিন্ন পক্ষের মাঝে দফা দফায় সংঘর্ষ রক্তপাত হয়ে থাকে। যা শান্ত বাহুবলকে অশান্ত করে তুলেছে ওই গ্রামের কিছু বিপদগামী লোকজন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর